আমাদের লক্ষ্য শিশুর উন্নত জীবন নিশ্চিত করা: প্রধানমন্ত্রী !!

0
71

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তার সরকারের লক্ষ্য হচ্ছে শিশুদের জন্য মাদক, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের থাবা থেকে মুক্ত উন্নত জীবন নিশ্চিত করা। বিশ্ব শিশু দিবস এবং শিশু অধিকার সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

বুধবার বাংলাদেশ শিশু একাডেমিতে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ, মাদক ও দুর্নীতির বিরূপ প্রভাব থেকে মুক্ত করে আমাদের শিশুদের একটি সুন্দর ও উন্নত জীবন নিশ্চিত করা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার বাংলাদেশকে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করবে যাতে আজকের শিশুরা সামনের দিনগুলোতে একটি সমৃদ্ধ ভবিষ্যৎ লাভ করে। আমরা এই লক্ষ্য অর্জনেই কাজ করে যাচ্ছি।

শিশুদের উন্নত জীবনের জন্য বঙ্গবন্ধুর নেয়া পদক্ষেপ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রাথমিক শিক্ষায় শিক্ষার্থী এবং মাধ্যমিক স্তরে মেয়েদের জন্য বিনা বেতনে পড়াশোনার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, শিশু অধিকার রক্ষায় বঙ্গবন্ধু শিশু আইন-১৯৭৪ অনুমোদন করেন। মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে এবারের প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘আজকের শিশু আনবে আলো, বিশ্বটাকে রাখবে ভালো’।

বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ উপলক্ষে শিশুদের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী যোগ্য নাগরিক হিসেবে নিজেদের গড়ে তোলার জন্য তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, শিশুরাই দেশের ভবিষ্যৎ নাগরিক। শিশুরাই জাতিকে নেতৃত্ব দেবে। তাই, ভালোবাসা, সহানুভূতি ও সুশিক্ষার মাধ্যমে নিজেদের গড়ে তোলাটা জরুরি, যাতে করে শিশুরা ভবিষ্যতে বিশ্বে ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে পারে।

মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান লাকী ইনাম এবং ইউনিসেফের ডেপুটি রিপ্রেজেন্টেটিভ ভেরা মেনডোনকা বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন। মন্ত্রণালয়ের সচিব কামরুন নাহার অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন।

দুই শিশু রওনক জাহান এবং আদিল কিবরিয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা এবং অপর দুই শিশু মাহজাবিন এবং আবদুল্লাহ আল হাসান শিশুদের পক্ষে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন। প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে শিশুদের লেখা চিঠির একটি সংকলন এবং একটি শিশুর আঁকা তার পোর্ট্রেট শেখ হাসিনার কাছে হস্তান্তর করা হয়। প্রধানমন্ত্রী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান প্রত্যক্ষ করেন এবং শিশুদের সঙ্গে ফটোসেশনে অংশ নেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী নতুনভাবে সাজানো কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি এবং শিশু একাডেমি চত্বরে বঙ্গবন্ধু কর্নার পরিদর্শন করেন। সেখানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তার বড় মেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লেখা বই এবং তাদের ওপর লেখা বই রাখা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নতুন করে সাজানো শেখ রাসেল গ্যালারি এবং শেখ রাসেল চিলড্রেন মিউজিয়ামে শেখ রাসেল আর্ট গ্যালারি পরিদর্শন করেন।

দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী চাকরিপ্রার্থীদের সমস্যা সমাধানের নির্দেশ : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী চাকরিপ্রার্থীদের সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন। চাকরিপ্রত্যাশী দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী পরিষদের ৬ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল বুধবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশ দেন। সাক্ষাৎ শেষে প্রধানমন্ত্রীর উপ-প্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।

সাক্ষাৎকালে প্রতিনিধি দল সরকারি চাকরিতে কোটা পুনর্বহাল এবং তাদের জন্য বিশেষ বিসিএস পরীক্ষার ব্যবস্থা করাসহ ছয় দফা দাবি পেশ করেন। এ ছাড়া তারা দৃষ্টিপ্রতিবন্ধীদের সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীন দেশের ৬৪ জেলায় রিসোর্স টিচার হিসেবে নিয়োগ দেয়ারও দাবি জানান। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী মো. ফরহাদ হোসেন ও জনপ্রশাসন সচিব ফায়েজ আহমেদ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here