চন্দ্রাভিযানের ব্যর্থতা নিয়ে দুই সুর মমতার !!

0
79

একেবারে শেষ মুহূর্তে থমকে গেল ভারতের স্বপ্ন। পৃথিবী থেকে দীর্ঘ ৪৭ দিনের যাত্রা শেষে চাঁদের মাটি থেকে মাত্র ২.১ কিলোমিটার দূরে থাকতেই চন্দ্রযান-২-এর ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

চন্দ্রাভিযান নিয়ে শুক্রবার বিকালে নরেন্দ্র মোদি সরকারকে খোঁচা দিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। কয়েক ঘণ্টা পরেই অবশ্য ভোল পাল্টান তিনি। বলেন, ইসরোর বিজ্ঞানীরা চন্দ্রাভিযানের জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছেন এবং এই দেশ তাদের সঙ্গেই রয়েছে।

শুক্রবার মধ্যরাতের পর চাঁদের মাটি থেকে মাত্র ২.১ কিলোমিটার দূরে থাকতেই চন্দ্রযান-২-এর ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। ল্যান্ডার বিক্রম চাঁদের মাটিতে উপযোগী পরিবেশে অবতরণ করতে পারলে তা থেকে বেরিয়ে আসত রোবটযান প্রজ্ঞান। তাহলেই যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও চীনের পর চন্দ্র বিজয়ীর তালিকায় চতুর্থ দেশ হিসেবে নাম লেখাতে পারত ভারত।

ভারতের চন্দ্রমিশন নিয়ে শুক্রবারই মোদি সরকারকে একহাত নিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা। বিধানসভায় এনআরসি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে মমতা কেন্দ্র সরকারকে খোঁচা দিয়ে বলেছিলেন, দেশের আর্থিক বিপর্যয়ের মধ্যে মানুষের দৃষ্টি অন্যদিকে ঘোরানোর জন্য চন্দ্রযান-২-এর প্রচার চলছে। তিনি বিজেপি নেতাদের চাঁদে গিয়ে বহুতল বাড়ি বানিয়ে সেখানেই থেকে যাওয়ার কথাও বলেছেন।

পরে শনিবার এক টুইটবার্তায় মমতা বলেন, আমরা আমাদের বিজ্ঞানীদের জন্য গর্বিত। ইসরোর বিজ্ঞানীদের দল চন্দ্রযান-২-এর জন্য দিনরাত কষ্ট করেছে। সময়ের নিরিখে বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার দিক থেকে এগিয়ে থাকা দেশগুলোর তালিকায় ভারতকেও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য যারা পরিকল্পনা ও বাস্তবায়ন করছেন, তাদের উদ্দেশে গভীর শ্রদ্ধা।

মমতা ইসরোর বিজ্ঞানীদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, এ দেশ তাদের পাশেই রয়েছে। টুইটবার্তায় তিনি আরও লিখেছেন, আমাদের সবার মধ্যে অদ্ভুত এক বৈজ্ঞানিক মেজাজ জাগিয়ে তুলেছেন তারা। আমার আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন আপনাদের, আমরা সবাই আপনাদের সঙ্গেই রয়েছি। আমাদের আরও গর্বের কারণ হয়ে উঠুন!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here