চামড়া বিক্রি করতে এসে যে বেকায়দায় পরেছেন বিক্রেতারা !!

0
48

কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম থানার গুণবতী ইউনিয়নের চাপাচৌ গ্রামের বাসিন্দা তিনি। এবার ছাগল কোরবানি দিয়েছেন বাবু। আর ছাগলের চামড়া বিক্রি করতে সোমবার সন্ধ্যায় পার্শ্ববর্তী গুণবতী বাজারে যান তিনি।

এরপরই পড়লেন বেকায়দায়। ছাগলের চামড়ার ক্রেতাই মিলল না। উল্টো জায়গা পরিষ্কারের জন্য চাওয়া হচ্ছে টাকা।

নূরনবী বাবু  বলেন, চামড়া বিক্রি করে এতিমখানায় টাকা দেব ভেবেছিলাম কিন্তু বাজারে এসে পড়লাম বেকায়দায়। ছাগলের চামড়ার কোনো ক্রেতাই নেই। উল্টো চামড়া রাখার জায়গা পরিষ্কারের জন্য টাকা চাওয়া হচ্ছে।

ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, চামড়ার টাকা গরীবরা পায়। অথচ এ চামড়া নিয়ে সিন্ডিকেট তৈরি করা হয়েছে। এর মাধ্যমে গরীবকেই বঞ্চিত করা হচ্ছে। এটা মেনে নেয়া যায় না।

শাহ আলম নামের একজন চামড়া ব্যবসায়ী বলেন, ৩০০ টাকা দিয়ে বাড়ি-বাড়ি গিয়ে চামড়া কিনে আনলেও সে চামড়ার দাম উঠেছে মাত্র ২০০ থেকে ২৫০ টাকা। চামড়ার এ নজিরবিহীন মূল্যহ্রাস দেখে আমি খুবই হতাশ।

এর আগে গত ৬ আগস্ট কোরবানির পশুর চামড়ার দাম নির্ধারণ করে দেয় সরকার। ঢাকায় প্রতি বর্গফুট গরুর চামড়ার দাম ৪৫ থেকে ৫০ টাকা। ঢাকার বাইরে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা।

সারা দেশে প্রতি বর্গফুট খাসির চামড়ার দাম ১৮ থেকে ২০ টাকা। আর বকরির চামড়ার দাম প্রতি বর্গফুট ১৩ থেকে ১৫ টাকা। সেদিন সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠক শেষে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি চামড়ার এ দাম ঘোষণা করেন।

সূত্রঃবিডি২৪লাইভ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here