স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা, হাসপাতাল গনপিটুনি স্বামীকে

স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টার অভিযোগে হাসপাতালের সামনেই গনপিটুনি স্বামীকে। ঘটনার জেরে ধুন্ধুমার বাঁধে রায়গঞ্জ জেলা হাসপাতাল চত্বরে। ঘটনাস্থলে পৌঁছে অভিযুক্ত স্বামীকে আটক করে পুলিশ। আহত ওই ব্যক্তি বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

স্ত্রীকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টার অভিযোগে হাসপাতালের সামনেই গনপিটুনি স্বামীকে। ঘটনার জেরে ধুন্ধুমার বাঁধে রায়গঞ্জ জেলা হাসপাতাল চত্বরে। ঘটনাস্থলে পৌঁছে অভিযুক্ত স্বামীকে আটক করে পুলিশ। আহত ওই ব্যক্তি বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

পুলিশ ও পরিবার সূত্রের খবর, রায়গঞ্জ থানা এলাকার বাহিন গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার মহারাজপুরের বাসিন্দা সুকুমার মণ্ডলের সঙ্গে বছর চারেক আগে মাড়াইকুড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের নেতাজি মোড় এলাকার শিপ্রা (মমতা) শর্মার বিয়ে হয়। অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই শিপ্রার ওপর অত্যাচার চালাত তার শ্বাশুড়ি ও স্বামী। শনিবার সকালে অত্যাচারের মাত্রা চরমে পৌঁছয়। শিপ্রার গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়ে স্বামী ও শ্বাশুড়ি তাঁকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টা করে বলে অভিযোগ। ঘটনায় সামান্য দগ্ধ হন স্বামী সুকুমারও।

খবর পেয়ে শিপ্রার বাপের বাড়ির লোকেরা দ্রুত পৌঁছে মেয়েকে রায়গঞ্জ জেলা হাসপাতালে ভর্ত্তি করেন। হাসপাতালে যান স্বামী সুকুমারও। শিপ্রাকে হাসপাতালে ভর্তির পরই সুকুমারকে হাতের সামনে পেয়ে তাঁকে বেধড়ক মারধর করেন নির্যাতিতা গৃহবধূর বাপের বাড়ির লোকেরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। দগ্ধ-আহত সুকুমারকে আহত অবস্থায় আটক করে জেলা হাসপাতালেই চিকিৎসা ভর্ত্তি করায় তারা। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

Leave a Reply