ধর্ষণের পর সদ্য ভূমিষ্ট নবজাতক ও মাকে খুন !

কুমিল্লার লাকসাম মুদাফরগঞ্জের আলী নোয়াব উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে নবম শ্রেণি ছাত্রী শারমিন আক্তার রিয়া (১৬)কে গত ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭ইং তারিখ রাতে বাড়ি থেকে অপহরণ করে ধর্ষণ, নবজাতক শিশু ভূমিষ্টের পর হত্যা করে লাশ উপজেলার ১নং বাকই দক্ষিণ ইউনিয়নের কোঁয়ার পশ্চিমপাড়া গ্রামের মসজিদের ময়লার সেপটিক ট্যাংকির ভিতর ফেলে দেয় দুর্বৃত্তরা।

এ ঘটনায় গত ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ইং তারিখ নিহত স্কুল ছাত্রীর পিতা রুস্তুম আলী লাকসাম থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করলেও দীর্ঘ ৩ মাসেও আসামীদের গ্রেফতার ও মামলার ক্লু বের করতে পারেনি বলে স্বজনদের অভিযোগ।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়- জেলার লাকসাম উপজেলার উপজেলার ১নং বাকই দক্ষিণ ইউনিয়নের কোঁয়ার গ্রামের রুস্তুম আলীর কন্যা মুদাফরগঞ্জ আলী নোয়াব উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে নবম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী শারমিন আক্তার রিয়া (১৬) গত ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭ইং তারিখ তার ছোট বোন আক্তার (১১)সহ নিজ বাড়িতে ঘুমিয়েছিল।

ওই দিন রাত ২টার সময় রিয়াকে ঘরের বাহির কে বা কারা ডাকতে থাকে। এ সময় রিয়া ডাকের সারা দিতে গিয়ে বাড়ির থেকে বের হলে ওই দিন রাত বাড়িতে না যাওয়ায় তার স্বজনরা অনেক খোঁজাখুজি করতে থাকে। পরে গত ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ইং তারিখ রুস্তুম আলী মেয়েকে না পেয়ে লাকসাম থানায় যাওয়ার পথিমধ্যে কোয়ার নুরানী কোরআন হাফেজিয়া মাদ্রাসার সংলগ্ন পশ্চিম পার্শ্বে সেলপটি ট্যাংকির ভিতর থেকে বস্তাবন্দি গলিত লাশের পা দেখতে পেয়ে তাকে খবর দেয়।

পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে রুস্তম আলী তার কন্যা রিয়ার লাশ বলে সনাক্ত করে। এ সময় রিয়ার গলায় ওড়না দ্বারা ফাঁস লাগানো এবং যৌনাঙ্গ দিয়ে ভূমিষ্ট প্রায় একটি নবজাতক মৃত শিশু দেখতে পায়। পরে লাকসাম থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে।

এ ঘটনায় নিহতের পিতা রুস্তুম আলী লাকসাম থানায় গত ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ইং তারিখ নারী ও শিশু দমন আইন ২০০০ সংশোধনী ২০০৩ এর ৯ (১)/৩০, ধর্ষণ, গর্ভপাত করা গর্ভজাত শিশু ভূমিষ্ট হওয়ার বাধা প্রদান করে একই উদ্দেশ্যে হত্যা করে লাশ গুম করার অপরাধে মামলা দায়ের করে। তবে, মামলা দায়েরের ৩ মাসেও পুলিশ কোন আসামী এবং ক্লু বের করতে পারেনি।

এ ঘটনায় নিহতের পিতা রুস্তুম আলী জানান, ঘটনার দিন আমি আমার শ্বশুর বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছিলাম। বাড়ি ফাঁকা থাকায় দুর্বৃত্তরা সুযোগটি কাজে লাগিয়ে আমার মেয়েকে ঘর থেকে বের নিয়ে হত্যা করে।

Leave a Reply