মান-সম্মান বাঁচাতে জামাইবাবাজিকে শৌচাগার উপহার দিলেন শ্বশুর!

জামাই আদর করে শশুর কতো কি উপহার দেন। কিন্তু শৌচাগার উপহার দিয়েছেন এমনটা অনেকেই শুনেননি। কিন্তু এরকম ঘটনাই ঘটেছে ভারতের মুর্শিদাবাদের বেলডাঙ্গায়।

বেলডাঙায় ফেরিওয়ালা হাফিজুর মল্লিকের মেয়ে হাসিনার ৬ বছর আগে বিয়ে হয় মিঠুনের সাথে। দুটো পরিবারেরই টানাটানিতে চলে সংসার। তারপরও গ্রামের লোকের কাছে মেয়ের মান-সম্মান বাঁচাতে জামাইবাবাজিকে শৌচাগার উপহার দিয়েছেন শ্বশুর।

শ্বশুরের কাছ থেকে নগদ ৩০ হাজার টাকা পেয়ে ইতিমধ্যেই বাড়িতে শৌচাগারের কাজও শেষ করে ফেলেছেন জামাই। এদিকে এই সচেতনার জন্য গ্রামে প্রশংসা পেয়েছেন হাফিজুর মল্লিক। অন্যদিকে এই মুর্শিদাবাদ জেলারই জঙ্গিপুর মহকুমার মধ্যে সাগরদিঘিতে টানাটানির সংসারে নিজের সোনার দুল বিক্রি করে পাকা শৌচাগার তৈরি করেছেন বাসিন্দা শ্যামলী মণ্ডল।

ছয় জনের অভাবী পরিবার। স্বামী ফুচকা বিক্রেতা। বাড়িতে কোনও শৌচালয় না থাকায় মহিলারা অসম্মান বোধ করতেন।

ঘরের লক্ষ্মী এভাবে সোনার গয়না বেচে শৌচাগার তৈরি করায় গোটা গ্রাম শ্যামলীদেবীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ। শ্যামলী মণ্ডল জানান, ছয় আনা সোনার দুই জোড়া কানের দুল বিক্রি করে শৌচাগার বানিয়েছি।

Leave a Reply