সৌদিতে নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতিতে আহমদ শফীর নিন্দা !!

সম্প্রতি সৌদি আরবে নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়েছেন হেফাজতে ইসলামের আমির শাহ আহমদ শফী।

আজ সোমবার সকালে রাজধানীর ফরিদাবাদ মাদ্রাসায় অনুষ্ঠিত বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের (বেফাক) মজলিসে উমুমী (কাউন্সিল) অধিবেশনে তিনি এ নিন্দা জানান। বেফাকের প্যাডে সংগঠনের মিডিয়া বিভাগের আজিজুর রহমান হেলাল স্বাক্ষরিত এক প্রেস রিলিজে একথা জানানো হয়।

বিশ্বের একমাত্র দেশ সৌদি আরব, যেখানে নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি ছিল না। গাড়ি চালানোর ‘অপরাধে’ অনেক নারীকে কারাভোগও করতে হয়েছে। তবে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে সৌদি বাদশাহ সালমান নারীদের গাড়ি চালানোর অনুমতি দিয়ে একটি ডিক্রি জারি করেছিলেন। সেখানে বলা হয়, প্রয়োজনীয় শরীয়াহ মানদণ্ড অনুসরণ করেই এই নির্দেশনা কার্যকর করা হচ্ছে। এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে ২০১৮ সালের জুন মাস থেকে।

 

 

আহমদ শফী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৭ সালের ১১ এপ্রিল গণভবনে বাংলাদেশের শীর্ষ আলেমদের অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রীয়ভাবে ঘোষণা করেন কওমি মাদ্রাসার স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য বজায় রেখে ও দারুল উলুম দেওবন্দের মূলনীতিগুলোকে ভিত্তি ধরে দাওরায়ে হাদিসের সনদকে মাস্টার্স (ইসলামিক স্টাডিজ ও আরবি) এর সমমান দেওয়া হবে। যদিও এখন পর্যন্ত সংসদে ও মন্ত্রিসভায় তা পাস করা হয়নি।’ সংসদের এই অধিবেশনে স্বীকৃতি পাসের দাবি জানান তিনি।

 

 

এদিকে আবারও বাংলাদেশ কওমি মাদ্রাসা বোর্ড বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশ (বেফাক)-এর সভাপতি হয়েছেন হেফাজতে ইসলামের আমির শাহ আহমদ শফী। গত ১০ বছর ধরে তিনি বেফাকের সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন।

 

 

আজ সোমবার রাজধানীর জামিয়া ইমদাদিয়া আরাবিয়া ফরিদাবাদ মাদ্রাসায় বেফাকের দশম কাউন্সিলে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। কাউন্সিল অধিবেশনে আহমদ শফী নির্বাহী কমিটি ও শুরা কমিটি ঘোষণা করেন।

 

 

নির্বাহী কমিটিতে ১১৬ জন এবং শুরা কমিটিতে ২৪২ জন সদস্য আছেন। পদাধিকার বলে নির্বাহী কমিটির ১১৬ জন সদস্য শুরা কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত হন। ঘোষিত নির্বাহী কমিটিতে ২৭ জনকে সহসভাপতি করা হয়েছে। এছাড়া, সহকারী মহাসচিব নির্বাচিত হয়েছেন ৮ জন। বেফাকের নবম কাউন্সিল ২০১২ সালে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। নিয়মানুযায়ী প্রতি পাঁচ বছর পরপর এই কাউন্সিল হয়ে থাকে।

Leave a Reply