তাসকিনের ‘উকিল বাপ’ কে জেনে অবাক হবেন !

প্রণয়প্রত্যাশী’ বহু তরুণীর হৃদয় ভেঙে সৈয়দা রাবেয়া নাঈমার সঙ্গে জীবনের নতুন ইনিংস শুরু করলেন স্পিডস্টার তাসকিন আহমেদ।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরটা মোটেও ভালো যায়নি। শুধু তাসকিনের নয়, পুরো বাংলাদেশ দলকেই যেন অচেনা লাগছিল। সেই দুঃস্বপ্ন শেষে নতুন করে স্বপ্নের পথে চলতে শুরু করলেন তাসকিন।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফর থেকে পরশু সকালে ঢাকায় এসে পৌঁছেছেন তাসকিন। বাসায় ফিরেই একটা লম্বা ঘুম। ‘ওঠ বাবা, কাজটা শেষ করে আসি’—আবদুর রশিদের ডাকে ঘুম ভাঙে বিকেলে। তারপর? তাসকিন মজা করে বলেন, বাকিটা ইতিহাস! গায়েহলুদ, আংটি বদল, বিয়ে—আকস্মিকভাবেই ঘটে গেছে সবকিছু। ঝটপট করতে হচ্ছে বলেই মোহাম্মদপুরের হোয়াইট প্যালেস কনভেনশন হলে আয়োজনটাও হয়েছে ছোট পরিসরে।

তাসকিনের বিয়েতে সতীর্থদের বেশিরভাগ উপস্থিত না থাকলেও এসেছিলেন দুই সিনিয়র সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজা ও তামিম ইকবাল। বাকিরা বিপিএল নিয়ে ব্যস্ত থাকায় যোগ দিতে পারেননি অনুষ্ঠানে। তবে পরিবার নিয়ে সেখানে ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি ও তামিম উপস্থিত ছিলেন।

জানা যায়, বিয়েতে মাশরাফি হয়েছেন তাসকিনের উকিল বাবা।

এদিকে হঠাৎ করে বিয়ের পর ভীষণ ব্যস্ত জাতীয় দলের তারকা ক্রিকেটার তাসকিন আহমেদ তাজিম। নতুন জীবনের সময়গুলো দারুণ উপভোগ করলেও বিয়ের খবরটা আগে না জানাতে পারায় ভক্তদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করে বলেছেন, সময় করে সবাইকে জানিয়ে একটি বড় অনুষ্ঠান করবেন।

বুধবার ব্যস্ততার ফাঁকেই তাসকিন বলেন, ‘বিয়ের পর আত্মীয়-বন্ধুদের বাসায় যাচ্ছি, জীবনের নতুন সময়টাকেও দারুণ উপভোগ করছি। “ঘরোয়াভাবে বিয়ের অনুষ্ঠান করায় অনেককে জানাতে পারিনি। সেজন্য আমি দুঃখিত আশাকরি সময় করে সবাইকে জানিয়ে একটি বড় অনুষ্ঠান করব।”

জানা গেছে, তাসকিনের জীবনসঙ্গী সৈয়দা রাবেয়া নাঈমার সঙ্গে দশম শ্রেণীতে পড়ার সময় মন দেয়া-নেয়ার পর্ব শেষ হয়। এরপর কেটে গেছে দীর্ঘ সাত বছর। পাশাপাশি এলাকায় থাকা, একই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা সবকিছুই চলছিল সবার আড়ালে। বিষয়টি দুই পরিবারে মধ্যে জানাজানি হলে একবছর আগেই পারিবারিকভাবে তাদের আংটি বদল হয়। এরপর থেকেই বিয়ের প্রস্তুতির জন্য তৈরি ছিলেন দু’পরিবার।

Leave a Reply