Islamic

কোরআনের অলৌকিকতার অনন্য নজির হচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়ার শিনদো আইল্যান্ড!

দক্ষিণ কোরিয়ার শিন্ডো দ্বীপ একটি রহস্যময় স্থান। এর পাশেই মোডো নামে একটি দ্বীপ। দুটি স্থান পাশাপাশি অবস্থিত হলেও দূরত্ব খুব কম নয়, মাঝখানে রয়েছে গভীর সমুদ্র। বসন্ত এবং গ্রীষ্মের মাঝামাঝি সময়ে দুইবার, সিন্দো এবং মোডো দ্বীপগুলির মধ্যে জল অন্যদিকে সরিয়ে একটি প্রাকৃতিক রাস্তা তৈরি করে। দৈর্ঘ্য ২.৬ কিমি, প্রস্থ ৪০ মি। যেন সংযোগ সড়ক কিন্তু সময়কাল মাত্র এক ঘন্টা! ঘটনাটি সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক।

‘মোজেস অলৌকিক’ সর্বশক্তিমান আল্লাহর আদেশে নীল নদীতে একটি রাস্তা নির্মাণের অনুরূপ। কুরআনের সত্যতা পাওয়া যায় ‘মোজেস মিরাকল’ -এ, যা মুসা (আ) ও ফেরাউনের ঘটনা এবং দক্ষিণ কোরিয়ার সেই দ্বীপের বাস্তবতার উপর ভিত্তি করে। ইরশাদ করলেন, ‘আমি তোমার জন্য সমুদ্রকে বিভক্ত করেছিলাম, তারপর তোমাকে বাঁচিয়েছিলাম।’ (সুরা আল বাকারা, আয়াত ৫০)

ফেরাউনের বাহিনী মুসা (আ) এর অনুসারীদের তাড়া করে লোহিত সাগরে নিয়ে আসে। অতপর মহান আল্লাহর ইচ্ছায় মুসা (আ।) – এর লাঠির আঘাতে সমুদ্রের মধ্য দিয়ে ১২ টি রাস্তা তৈরী হয়। ফেরাউনের সেনাবাহিনীকে ডুবিয়ে মূসা (আ) তার অনুসারীদের নিয়ে নিরাপদে চলে গেলেন।

অন্যদিকে, সিন্দো দ্বীপের ‘মোজেস মিরাকল’ ১৯৭৫ সালের পর ব্যাপকভাবে পরিচিতি লাভ করে। ফিনিস কূটনীতিক সিন্দো পরিদর্শন করেন এবং তার দেশের সংবাদপত্রে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেন। সেই থেকে, ‘মোজেস মিরাকল’ এর জন্য প্রতি বছর হাজার হাজার পর্যটক সিন্দোতে এসেছিলেন।

দক্ষিণ কোরিয়ানরা ‘মোজেস মিরাকল’ বা ‘সিন্দো মিরাকল সি রোড ফেস্টিভ্যাল’ উদযাপন করে। এই উৎসব পর্যটকদের কাছে বিরল এবং খুবই উপভোগ্য। পর্যটকরা সাগরের জল সরিয়ে তৈরি রাস্তা থেকে শামুক, ঝিনুক, ছোট মাছ ধরতে পারে। কিন্তু সময় নির্যাসের। কারণ রাস্তার সময়কাল মাত্র এক ঘন্টা। সময় নষ্ট হলে অনিবার্য মৃত্যু!

‘মোজেস মিরাকল’ -এর বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা হল এই অঞ্চলের জোয়ার বছরের মার্চ থেকে জুন পর্যন্ত। এটা প্রশ্ন করা স্বাভাবিক যে, প্রতি বছর সেই সময়ে সমুদ্র কেন ভাগ হয়? বিজ্ঞানীরা ব্যাখ্যা করেছেন যে পৃথিবীতে সূর্য এবং চাঁদের আকর্ষণের কারণে জোয়ারের সৃষ্টি হয়। সারা বছর জুড়ে এমন জোয়ার -ভাটা থাকলেও সে সময় সমুদ্রকে দ্বিখণ্ডিত করা হয় কেন? এই ধরনের প্রশ্নের সন্তোষজনক উত্তর আছে ‘জোয়ারের সুর’ ধারণায়।

অর্থাৎ, যখন সূর্য, চাঁদ এবং পৃথিবী তাদের নিজস্ব কক্ষপথে আবর্তিত হয়, তখন তাদের অবস্থান একটি নির্দিষ্ট বিন্দুতে আসে, যখন চাঁদ এবং সূর্যের সম্মিলিত মহাকর্ষীয় টান পৃথিবীর নির্দিষ্ট স্থানে জোয়ারকে অনেক কম করে । এবং শিন্ডো দ্বীপে জায়গাটি একটু উঁচু হওয়ার কারণে, জল কমে যায় এবং রাস্তাটি কিছু সময়ের জন্য তৈরি হয়। এ ব্যাপারে ইসলামের ভাষ্য হচ্ছে জোয়ার -ভাটা আল্লাহর নির্দেশে। ইরশাদ করেন, ‘সূর্যের চাঁদে পৌঁছানোর ক্ষমতা নেই। আর দিনের আগে রাত কেটে যাবে না। ‘(সূরা: ইয়াসিন, আয়াত: ৪০)

দক্ষিণ কোরিয়ায় ‘মোজেস মিরাকল’ নিয়ে অনেক কিংবদন্তি আছে। সবচেয়ে সাধারণ ঘটনা হল যে সিন্দো দ্বীপে অসংখ্য বাঘ ছিল, প্রায়ই স্থানীয়ভাবে বাঘকে আক্রমণ করে। একবার সবাই বাঘের আক্রমণ থেকে বাঁচতে মোডো দ্বীপে পালিয়ে যায়। একজন বৃদ্ধ মহিলা পালাতে পারেননি। নিরুপায় বুড়ি, লোককথা অনুসারে, সমুদ্র দেবতার কাছে তাঁর অসহায়ত্বের জন্য আবেদন করেছিলেন। দেবতা তাকে সান্ত্বনা দিলেন এবং তাকে বললেন যে পরের দিন সে সাগরে রংধনুর মতো পথ দেখতে পাবে। পরের দিন বুড়ি সমুদ্রের ওপারে গিয়ে দেখল যে সমুদ্রের মধ্য দিয়ে একটি পথ তৈরি করা হয়েছে।

Jannat Tia

Hey! I'm Jannat Tia. Bangladeshi Content creator and Content writer. I would like to write about trending topic and news of National and International

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button