দেশের খবর

ভারতে রফতানির খবরে ইলিশের কেজি ৮৫০ টাকা!

বাংলাদেশ থেকে আসন্ন দুর্গাপূজা উপলক্ষে ২০ সেপ্টেম্বর বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ৫২ টি কোম্পানিকে ভারতে ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দেয়। প্রতিটি কোম্পানিকে ৪০ মেট্রিক টনে মোট ২০৮০ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। বলা হয়েছিল যে ইলিশ মাছ রপ্তানির জন্য প্রাপ্ত আবেদনগুলি যাচাই -বাছাই করার পরে, ৫২ টি কোম্পানিকে ভারতে নির্ধারিত পরিমাণ ইলিশ মাছ রপ্তানির জন্য শর্তাধীন অনুমতি দেওয়া হয়েছিল।

প্রতিটি কোম্পানি ৪০ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানির সুযোগ পাবে। ব্যবসায়ীরা জানান, এই অনুমতির কারণে ইলিশের দাম কমছে না। ইলিশের সবচেয়ে বড় বাজার হিসেবে পরিচিত চাঁদপুর বড় স্টেশন মাছের বাজারেও ইলিশের আমদানি বেড়েছে। মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) এবং বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) প্রায় দুই হাজার মনস ইলিশ বাজারে এসেছে। চাঁদপুর বড় স্টেশনের মাছচাষি সাগর হোসেন জানান, রপ্তানির অনুমতি থাকায় মাছটি এলসির মাধ্যমে ভারতে যাবে। ব্যবসায়ীরা ইতোমধ্যে চাঁদপুর ফিশিং গ্রাউন্ড থেকে মাছ কেনা শুরু করেছেন। এজন্য মাছের দাম তুলনামূলকভাবে বেশি। তিনি বলেন, চাঁদপুর নদী এলাকায় খুব কম ইলিশ আছে। তবে হাতিয়া ও কক্সবাজার এলাকা থেকে ইলিশের আমদানি বেড়েছে।

বর্তমানে ৪০০-৭০০ গ্রামের উপকূলীয় ইলিশ প্রতি মণ ২০ হাজার থেকে ২২ হাজার টাকা (সর্বোচ্চ ৫৫০ কেজি), ৮০০-৯০০ গ্রামের ইলিশ প্রতি মণ ৩০ হাজার থেকে ৩৪ হাজার টাকায় (সর্বোচ্চ ৮৫০ টাকা কেজি) এবং এক কেজি থেকে দেড় কেজি ওজনের ইলিশ প্রতি মণ ৪২ হাজার থেকে ৪৪ হাজার টাকা (সর্বোচ্চ ১১০০ টাকা কেজি)। তবে চাঁদপুর নদী অঞ্চলের প্রতি মণ ইলিশ আরও প্রায় পাঁচ হাজার টাকা বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন আড়তের মালিকরা।

বড় স্টেশন মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. সবে বরাত সরকার বলেন, গত দুইদিন ধরে এখানকার বাজারে দেড় থেকে দুই হাজার মণ ইলিশের আমদানি হয়েছে। দুর্গাপূজা উপলক্ষে ৫২টি প্রতিষ্ঠানকে ভারতে ইলিশ রফতানির অনুমতি দিয়েছে সরকার। এ কারণে বাজারে ইলিশের আমদানি বাড়লেও দাম কমেনি।

Jannat Tia

Hey! I'm Jannat Tia. Bangladeshi Content creator and Content writer. I would like to write about trending topic and news of National and International

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button