মধ্যপ্রাচ্যে ঐক্যের ডাক দিয়েছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি। তিনি বলেছেন, মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোকে একত্র হতে হবে এবং বিদেশি শক্তির প্রভাব এড়িয়ে চলতে হবে। রোববার (১২ জানুয়ারি) সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি আহ্বান জানান। জেনারেল সোলাইমানিকে যুক্তরাষ্ট্র হ’ত্যা করার পরে ইরাকের দুটি মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের হামলার পর যুক্তরাষ্ট্র-ইরান তীব্র উত্তেজনার মধ্যেই এমন আহ্বান জানালেন ইরানের এই নেতা।

এদিকে মার্কিন ঘাঁটিতে ইরানের হামলার সময় ভুলবশত ইরানের মাটিতে ইউক্রেনের একটি যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্তের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সঙ্কট আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। যুক্তরাষ্ট্র এবং এর মিত্রদেশগুলোর কারণে বিভিন্ন দেশের মধ্যে যে যুদ্ধ, হাঙ্গামার পরিস্থিতি তৈরি হচ্ছে তা প্রতিহত করতে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোকে নিজেদের মধ্যে সম্পর্কের উন্নয়ন ঘটানোর আহ্বান জানিয়েছেন ইরানের এ সর্বোচ্চ নেতা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে খামেনি উল্লেখ করেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বিভিন্ন দেশগুলোর মধ্যে সম্পর্ক আগের চেয়ে আরও বেশি শক্তিশালী করতে হবে। একই সঙ্গে বিদেশি শক্তির হস্তক্ষেপ এড়িয়ে চলতে হবে। অপরদিকে ইরানের ক্ষমতাসীনদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে রাজধানী তেহরানসহ বিভিন্ন শহর। ইউক্রেনের একটি যাত্রীবাহী বিমান ভুলবশত গুলি করে ভূপাতিত করার ঘটনায় ইরানে দ্বিতীয় তৃতীয় দিনের মতো বিক্ষোভ চলছে। এ ঘটনায় ইরানের সামরিক বাহিনী দায় স্বীকার করার পর দেশটির ক্ষমতাসীনদের পদত্যাগ দাবি করে বিক্ষোভ শুরু হয়। দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে শিক্ষার্থীরা জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করতে থাকেন।

এদিকে ইরানের এই বিক্ষোভকে সমর্থন জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি এই বিক্ষোভকে অনুপ্রেরণামূলক বলে উল্লেখ করেছেন। এছাড়া তিনি বিক্ষোভকারীদের হ’ত্যা না করতে ইরান সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। এ নিয়ে এক টুইটে ট্রাম্প বলেন, ইরানের নেতাদের উদ্দেশে বলছি, আপনারা বিক্ষোভকারীদের হ’ত্যা করবেন না। আপনারা এর মধ্যেই কয়েক হাজার মানুষকে হ’ত্যা বা বন্দী করেছেন। বিশ্ব আপনাদের দেখছে। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্র সবকিছু পর্যবেক্ষণ করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here