ভারতের দিল্লি এবং গুজরাটে দেশটির প্রজাতন্ত্র দিবসে (২৬ জানুয়ারি) একযোগে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা প্রকাশ করেছে দেশটির পুলিশ। এ নাশকতার পরিকল্পনার পেছনে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইকে সন্দেহের চোখে রেখেছে তারা। সম্প্রতি দিল্লি ও গুজরাটের বিভিন্ন স্থান থেকে ৭ জনকে আটক করার পর পুলিশ এই আশঙ্কার কথা জানিয়েছে।

ওই ৭ জন জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের সদস্য বলে দিল্লি পুলিশ দাবি করেছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদেই দিল্লি ও গুজরাট নিয়ে হামলার পরিকল্পনার কথা জানা গেছে। এদিকে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, দিল্লি পুলিশ গত ৯ ডিসেম্বর ৩ জনকে গ্রেফতার করে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদের পরে গুজরাট থেকে আরও ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়। পরে সবাইকে একসঙ্গে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তাদের সঙ্গে আরও দু’জন ছিল। তারা সবাই আইএস সদস্য। কিন্তু তাদের পাঠিয়েছে পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই। পাকিস্তানি গোয়েন্দা সংস্থা চাইছে, আইএস জঙ্গিদের দিয়ে হামলা করালে তাদের উপর দোষ পড়বে না। আইএস জঙ্গি সংগঠনের ঘাড়েই এর দোষ পড়বে। তাই তাদের আগামী ২৬ জানুয়ারি ভারতের দুটি গুরুত্বপূর্ণ শহরে হামলা চালানোর নির্দেশনা দিয়েছে আইএসআই।

এ বিষয়ে দিল্লির পুলিশ কর্মকর্তা আশুতোষ কুমার বলেন, দিল্লি পুলিশ ও সেনাবাহিনীর নিয়োগ ক্যাম্পে হামলা চালানোর পরিকল্পনা করেছিল তারা। আরও দু’জন জঙ্গি দেশে ঢুকেছে। তারা এখন উত্তর প্রদেশে রয়েছে বলে গোপন সূত্রে খবর পাওয়া যাচ্ছে। এই দু’জন জঙ্গির নাম খাজা মইনুদ্দিন এবং আবদুল সামাদ। তাদের শেষবার দেখা গিয়েছিল পশ্চিমবঙ্গের শিলিগুড়িতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here